WBCS পরীক্ষা ২০২২।What is WBCS in Bengali

WBCS-এর পুরো অর্থ হলো ‘West Bengal Civil Service’, বাংলায় ‘পশ্চিমবঙ্গ সিভিল সার্ভিস’, পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশন-এর অধীনে একটি পরীক্ষা, যার মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উচ্চপদস্ত অফিসারদের নিযুক্ত করা হয়। প্রতিবছর নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে এই পরীক্ষার নোটিশ বের হয়। আজ আমরা এই WBCS Exam-এর ব্যাপারে আলোচনা করবো।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন কার্যকলাপ চালনার জন্য অফিসারদের গুরুত্ব অপরিসীম। সমস্ত নীতি পরিচালনা করা, নানা সরকারি প্রকল্প ঠিক ভাবে পরিচালিত করা, নির্দিষ্ট দপ্তরের কার্যকলাপ ইত্যাদি কাজের দায়িত্ব পালন করে থাকেন এই অফিসাররা। ভালো বেতনের স্থায়ী সরকারি চাকরি, সাথে সরকারি কার্যকলাপে অংশগ্রহণ করার সুযোগের জন্য পশ্চিমবঙ্গের সরকারি চাকরির প্রার্থীদের কাছে পরীক্ষাটি খুব জনপ্রিয়। পরীক্ষাটির ব্যাপারে বিস্তারিত জেনে নিন –

wbcs
Wbcs পরীক্ষার প্রস্তুতি

What Is WBCS (WBCS কি?)

এক কথায় বলা যেতে পারে পরীক্ষাটি হল পশ্চিমবঙ্গের ‘আই.এ.এস’ (IAS) পরীক্ষা। ‘আই.এ.এস’ (IAS) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যেমন কেন্দ্র সরকারের সমস্ত উচ্চ পদগুলিতে অফিসার হিসাবে নিযুক্ত হওয়া যায়, তেমনি পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উচ্চ পদস্থ অফিসাররা এই WBCS পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েই নিযুক্ত হন। পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অধীনে থাকা, প্রায় সব দপ্তরের অফিসার এই পরীক্ষার মাধ্যমে নিযুক্ত হয়ে থাকে। প্রতিবছর হাজার হাজার প্রার্থী এই পরীক্ষাটিতে অংশগ্রহন করে।

পরীক্ষার নামWest Bengal Civil Services (WBCS)
পরিচালনা করেWest Bengal Public Service Commission (WBPSC)
পরীক্ষার ধরণOffline
পরীক্ষার ধাপতিনটি ধাপ
পরীক্ষার সময়প্রতিবছর
প্রশ্নের ভাষাবাংলা ও ইংলিশ

What kind of jobs are there in WBCS? (কি চাকরি পাওয়া যায়)

Group-A-এর   অফিসার অর্থাৎ, নানা জেলার BDO অফিসের এক্সিকিউটিভ অফিসার থেকে শুরু করে পশ্চিমবঙ্গ সরকার বিভিন্ন কাজে অংশগ্রহণ করে থাকে। প্রশাসনিক কাজ থেকে শুরু করে সমাজের কল্যাণের জন্য বিভিন্ন প্রকল্প পরিচালনা করা, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষির দিকে নজর দেওয়া ইত্যাদি। কাজের সুবিধার্থে, বিভিন্ন কাজের জন্যে ভিন্ন ভিন্ন দপ্তর প্রতিষ্ঠা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার, যেমন- ট্যাক্স সংগ্রহ করার জন্য Finance Department, কৃষির জন্য Agriculture Department, প্রশাসনিক কাজের জন্য আলাদা দপ্তর ইত্যাদি। প্রায় সমস্ত দপ্তরে গেজেটেড ও নন-গেজেটেড অফিসারের পদে নিয়োগ করা হয় এই পরীক্ষার মাধ্যমে। মোট চারটি গ্রুপের অফিসার নিয়োগ করা হয়। পরীক্ষাটি দিয়ে কি কি পদে নিয়োগ হওয়া যায় তা নিচে আলোচনা করা হল –

WBCS Officer List in West Bengal

জেলার সমস্ত ব্লকের BDO অফিসের এক্সিকিউটিভ (Group-A) অফিসার থেকে শুরু করে পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট (Group-D) অফিসার পর্যন্ত একাধিক পদ এই পরীক্ষার অধীনে আছে। একটি পরীক্ষার মাধ্যমে একাধিক অফিসার নিয়োগ করার জন্যে সমস্ত পদকে চারটি গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে, Group-A, B, C, D। গ্রুপ-A তে নিযুক্ত হন উচ্চপদস্থ অফিসাররা এবং গ্রুপ-B, C, D তে তুলনামূলক নিম্নপদস্থ অফিসাররা ক্রমান্বয়ে নিযুক্ত হন। প্রতিটি Group-এ যে যে পদগুলি আছে তা নিচে দেওয়া হল –

WBCS Group A Posts

(১) WBCS এক্সিকিউটিভ, (২) পশ্চিমবঙ্গ কমার্শিয়াল টেক্স সার্ভিস, (৩) পশ্চিমবঙ্গ এগ্রিকালচারাল ইনকাম ট্যাক্স সার্ভিস, (৪) পশ্চিমবঙ্গ এক্সাইজ সার্ভিস, (৫) পশ্চিমবঙ্গ CO-OPERATIVE সার্ভিস, (৬) পশ্চিমবঙ্গ লেবার সার্ভিস, (৭) পশ্চিমবঙ্গ ফুড & সাপ্লাই সার্ভিস, (৮) পশ্চিমবঙ্গ এম্প্লয়মেন্ট সার্ভিস, (৯) পশ্চিমবঙ্গ রেজিস্ট্রেশন ও স্ট্যাম্প রেভেনিউ সার্ভিস।

WBCS Group B Posts

এই গ্রুপে শুধুমাত্র “পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ সার্ভিস”(WBPCS) এ নিয়োগ করা হয়।

WBCS Group C Posts

(১) জয়েন্ট ব্লক ডেভলপমেন্ট অফিসার, (২) ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার অফ কনজিউমার অ্যাফেয়ার্স, (৩) পশ্চিমবঙ্গ জুনিয়র সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার সার্ভিস, (৪) অ্যাসিস্ট্যান্ট রেভিনিউ অফিসার, (৫) পশ্চিমবঙ্গ SUBORDINATE ল্যান্ড রেভিনিউ সার্ভিস, (৬) অ্যাসিস্ট্যান্ট কমার্শিয়াল ট্যাক্স অফিসার, (৭) চিফ কন্ট্রোলার অফ কারেকশন সার্ভিস।

WBCS Group D Posts

(১) ইন্সপেক্টর অফ কো-অপারেটিভ সার্ভিস, (২) পঞ্চায়েত ডেভেলপমেন্ট অফিসার, (৩) রিহ্যাবিলিটেশন অফিসার।

WBCS Eligibility Criteria (WBCS পরীক্ষার যোগ্যতা)

WBCS Exam-এর জন্য পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশন নূন্যতম কিছু Eligibility Criteria রেখেছে। প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা, বয়স এবং শারীরিক মাপজোক হিসাবে আলাদা আলাদা Criteria রেখেছে WBPSC. সেগুলি নিচে আলোচনা করা হল –

WBCS Educational Qualification (শিক্ষাগত যোগ্যতা)

পাবলিক সার্ভিস কমিশন WBCS পরীক্ষায় বসার জন্য নূন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা রেখেছে গ্রাজুয়েশন পাশ। কোনো প্রার্থী যেকোনো শাখা/বিষয় নিয়ে দেশের যেকোনো বোর্ড থেকে গ্রাজুয়েশন পাশ করলে এই পরীক্ষার বসার সুযোগ পায়। সমস্ত প্রার্থীদের জন্য সমান যোগ্যতা রাখা হয়েছে অর্থাৎ SC/ST/OBC প্রার্থীরা শিক্ষাগত যোগ্যতার ক্ষেত্রে বয়সের মতো ছাড় পাবেনা।

WBCS Age Limit (বয়সসীমা)

চারটি গ্রুপের, গ্রুপ-A ও C ছাড়া আলাদা আলাদা Age Limit রাখা হয়েছে। ২১ বছর থেকে ৩৬ বছরের মধ্যে যাদের বয়স তারা Group-A এবং C-এর পদগুলির জন্য যোগ্য। Group-B জন্য ২০ বছর থেকে ৩৬ বছর পর্যন্ত বয়সসীমা রাখা হয়েছে, এবং Group-D-এর বয়সসীমা হল ২১ বছর থেকে ৩৯ বছর পর্যন্ত। বয়সসীমার ক্ষেত্রে SC,ST,OBC ও PWD প্রার্থীরা বয়সের ছাড় পায়। SC/ST প্রার্থীদের জন্য ৫ বছর এবং OBC প্রার্থীদের জন্য ৩ বছর বয়সের ছাড় রাখা হয়েছে।

WBCS Physical Requirements

Group-A,C,D পদগুলির জন্য কোনো Physical Requirements চাওয়া হয়নি। কিন্তু Group-B এর জন্য আলাদা ভাবে কিছু Physical Requirements রাখা হয়েছে। Group-B তে আবেদন করার জন্য ছেলেদের নূন্যতম ১৬৫ সেন্টিমিটার এবং মেয়েদের নূন্যতম ১৫০ সেন্টিমিটার উচ্চতা থাকতে হবে। যদি কোনো প্রার্থীর উপরিউক্ত উচ্চতা না থাকে তাহলে সেই প্রার্থী Group-B পদে আবেদন করতে পারবে না।

WBCS Application Process (আবেদন পদ্ধতি)

প্রwbpsc.gov.in এটি হল পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইট থেকেই সমস্ত WBPSC Recruitment-এর ফর্ম ফিলাপ করা যায়। বর্তমানে WBCS পরীক্ষার Application, WBPSC-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে করা যায়। নিচে Application Process টি বিস্তারিত বলা হল –

WBCS বা WBPSC এর যে কোনো পরীক্ষায় আবেদন করার জন্য প্রথমে ‘One Time Registration’ করতে হয়, তারপর ওই Registration নম্বর দিয়ে সমস্ত পরীক্ষায় আবেদন করা যায়।

How to Apply for WBCS

  • প্রথমে পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (WBPSC) ওয়েবসাইটে ‘One Time Registration’ করতে হবে।
  • Registration করার জন্য প্রার্থীর মোবাইল নম্বর এবং E-Mail Account সহ বাবা ও মায়ের নাম নথিভুক্ত করতে হবে।
  • নথিভুক্ত করার পর WBPSC-এর তরফ থেকে একটি OTP পাঠানো হবে প্রার্থীর মোবাইল নম্বরে।
  • OTP টি নথিভুক্ত করার পরেই প্রার্থীকে Enrollment Number ও Password দেওয়া হবে।

এই Enrollment Number এবং Password দিয়ে login করে WBCS পরীক্ষার ফর্ম ফিলাপ করা যাবে। WBCS Application Processটি নিচে আলোচনা করা হল –

WBCS Online Application

  • প্রথমে প্রার্থীর ব্যক্তিগত Enrollment Number ও password এর মাধ্যমে login করতে হবে।
  • Login করার পর Dashboard-এর Application অপশনে গেলে আবেদন করার Option পাওয়া যাবে।
  • আবেদনের প্রথমেই একটি Form ফিলাপ করতে ‘Save and Proceed’-এ ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর প্রার্থীর ছবি এবং Signature upload করতে হবে। ছবিটি JPEG file এবং 100kb এর মধ্যে হতে হবে। ছবি এবং Signature upload করার পর পেজার নিচে আবারো ‘Save and Proceed’ এ ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর ‘Add scholarly’ Section-এ প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতার সম্পর্কে যা যা চাওয়া হবে সেটি নথিভুক্ত করতে হবে।
  • এই section-এ প্রার্থী কোন গ্রুপে আবেদন করতে চায় সেটি চাওয়া হবে।
  • এই Section-এর পর আবেদন মূল্য চাওয়া হবে। online বা offline-এ আবেদন মূল্য দেওয়া যায়। বর্তমানে WBCS পরীক্ষার জন্য ২১০টাকা আবেদন মূল্য নেওয়া হয়। বিস্তারিত জানতে WBCS Application Process টি দেখুন।
  • আবেদন মূল্য দেওয়া সঙ্গে সঙ্গে প্রার্থীর আবেদনটি সম্পূর্ণ হবে। প্রার্থীদের নিজের আবেদন পত্র Print-Out বের করে রাখতে হবে।

WBCS Admit Card

প্রতিবছর পরীক্ষার ১৫দিন আগে থেকে আবেদনকারী প্রার্থীরা WBCS Admit Card Download করতে পারে। আবেদন করা যায় WBPSC-এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে। নিচে পদ্ধতিটি বিস্তারিত আলোচনা করা হল –

  • ‘Download Admit Card’ অপশনে ক্লিক করে Enrollment Number এবং জন্ম তারিখ দিয়ে Download করতে হবে।
  • প্রার্থীদের Admit Cardটি Print-Out করে রাখার নির্দেশ দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশন।

WBCS Exam Centres

পরীক্ষার দিন প্রার্থীদের Exam Centre-এ ১ ঘন্টা আগে পৌঁছনোর নির্দেশ দেওয়া হয়। পশ্চিমবঙ্গের প্রায় সমস্ত জেলাতেই Exam Cente রাখা হয়। নিচে প্রতিটি Centre-এর Code সমেত বিস্তারিত আলোচনা করা হল –

Kolkata (North), Kolkata (South), Baruipur, Diamond Harbour, Barrackpore, Barasat, Howrah, Hooghly, Burdwan, Asansol, Medinipur, Tamluk, Bankura, Berhampore, Malda, Jalpaiguri, Alipurduar, Cooch Behar, Siliguri, Kalimpong, Darjeeling

WBCS Selection Process

পরীক্ষাটি মোট তিনটি ধাপে হয় – (১) প্রিলিমিনারি পরীক্ষা (২) মেইন পরীক্ষা (৩) ইন্টারভিউ বা পার্সোনালিটি টেস্ট। প্রতিটি পরীক্ষার মাঝে নূন্যতম ২ মাসের সময় দেওয়া হয়। মেইন পরীক্ষাটি তারাই দিতে পারে যারা প্রিলিমিনারি পরীক্ষার Cut-Off ক্লিয়ার করে। ফাইনাল Merit list বের করা হয় মেইন পরীক্ষা ও ইন্টারভিউয়ের নম্বর অনুযায়ী।

WBCS Preparation (WBCS প্রস্তুতি)

২০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা। মেইনে ২০০নম্বরের ৬টি কম্পালসারি পেপার অর্থাৎ ১২০০ নম্বর, সাথে গ্রুপ-A,B-এর জন্য ২০০ নম্বরের ২টি অপশনাল পেপার অর্থাৎ ৪০০ নম্বর এবং তৃতীয় ধাপে ১০০ নম্বরের ইন্টারভিউ মিলে মোট ১৯০০ নম্বরের পরীক্ষা হওয়ায় পরীক্ষাটির প্রস্তুতিটিও অন্য পরীক্ষার থেকে একটু আলাদা ও তুলনামূলক দীর্ঘকালীন হয়ে থাকে।

প্রস্তুতি শুরু করার আগে অন্যান্য সরকারি পরীক্ষাগুলির মতোই পরীক্ষার প্যাটার্ন ও সিলেবাসটি জেনে নেওয়া জরুরী। কোন বিষয়ের কোন অধ্যায় থেকে কি ধরণের প্রশ্ন আসে তা যাচাই করার জন্য পরীক্ষাটির WBCS Previous Year Question Paper পর্যালোচনা করাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

WBCS পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য বাজারে প্রচুর বই পাওয়া যায়। তবে কোনো বই কেনার আগে বইটি ভালো না খারাপ তা যাচাই করা দরকার। ইন্টারনেটে সফল প্রার্থীদের WBCS Book List অর্থাৎ তারা কোন বই পরে সফলতা পেয়েছে তা জেনে নিয়ে বই কেনা যেতে পারে। প্রতিটি বিষয়ের জন্য আলাদা আলাদা বই কেনার সঙ্গে Practice করার জন্যও আলাদা বই কেনা জরুরী।

বর্তমান সময়ে অনলাইনেও পরীক্ষাটির প্রস্তুতি নেওয়া সম্ভব। অনলাইনে বিভিন্ন Website থেকে প্রস্তুতি নেওয়া যেতে পারে। বিভিন্ন সফল প্রার্থীদের মতে এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার জন্যে নিয়মিত পড়াশুনা খুব দরকার, তার সাথে কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স সম্পর্কে ওয়াকিবহাল থাকতে হবে। প্রিলিমিনারি ও মেইন পরীক্ষার প্রস্তুতির সাথে সাথে পরীক্ষার্ত্রীদের পার্সনালিটি টেস্টের জন্য নিজের ব্যক্তিত্ব সঠিক ভাবে গড়ে তোলার দিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে।

WBCS EXAM Pattern & Syllabus

আগেই উল্লেখ করা হয়েছে, পরীক্ষাটি তিনটি ধাপে হয় – (১) প্রিলিমিনারি পরীক্ষা, (২) মেইন পরীক্ষা  (৩) ইন্টারভিউ বা পার্সোনালিটি টেস্ট

প্রিলিমিনারি পরীক্ষা পাশ করলে মেইন পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ পাওয়া যায় এবং মেইন পরীক্ষার পর ইন্টারভিউ বা পার্সোনালিটি টেস্ট নেওয়া হয়। প্রিলিমিনারি পরীক্ষা ২০০ নম্বরের হয়, মোট ৮ টি বিষয় থেকে প্রশ্ন আসে। বিষয়গুলির ব্যাপারে জানতে WBCS Syllabus টি দেখতে পারেন।

পরীক্ষার দ্বিতীয় ধাপ অর্থাৎ মেইন পরীক্ষাতে মোট ৬টি কম্পালসারি পেপার থাকে। প্রতিটি কম্পালসারি পেপারে ১ নম্বরের ২০০ টি প্রশ্ন থাকে। ইচ্ছুক প্রার্থীদের গ্রুপ A ও B-এর জন্যে কম্পালসারি পেপারের সাথে, ২০০ নম্বরের একটি অপশনাল বিষয় নির্বাচন করতে হয়, যাতে ২টি পেপার থাকে।

WBPSC এবং WBCS কি এক?

না, WBPSC পশ্চিমবঙ্গ সরকারের একটি সংস্থা, যার পুরো নাম হলো পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (West Bengal Public Service Commission). এই সংস্থা পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিভিন্ন পরীক্ষা পরিচালনা করে থাকে, তার মধ্যে একটি পরীক্ষা হলো WBCS অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গ সিভিল সার্ভিস (West Bengal Civil সাভিস). তাই WBPSC সংস্থার দ্বারা পরিচালক একটি পরীক্ষা WBCS.

WBCS পরীক্ষায় বসার জন্য গ্রাজুয়েশনে কত নম্বর লাগে ?

WBCS পরীক্ষায় বসার জন্য গ্রাজুয়েশনের নম্বর বাধ্যতামূলক রাখা হয়নি। শুধুমাত্র গ্রাজুয়েশন পাস করলেই এই পরীক্ষায় বসা যাবে।

WBCS পরীক্ষা কতবার দেওয়া যায়?

WBPSC থেকে কোনো লিমিট ঠিক করা নেই। শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং বয়সসীমার মধ্যে থাকলেই পরীক্ষায় বসা যায়।

City College থেকে B.Com পাশ করেছি। স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ানোর অভিজ্ঞতা আছে।

6 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here